বাংলাদেশের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শওকত আজিজ রাসেলকে স্বপরিবারে এয়ার কানাডার ফ্লাইট থেকে পুলিশ ডেকে নামিয়ে  দেওয়া হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কানাডার টরন্টো থেকে লন্ডনের যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, শওকত আজিজ রাসেল বাংলাদেশের  শীর্ষস্থানীয় শিল্পগ্রুপ ’পারটেক্স’ এর কর্ণধার আবুল হাসেমের ছেলে। পুরো ঘটনাটি রবিবার ফেসবুক লাইভে প্রচার করেন শওকত আজিজ রাসেল নিজেই।
ঘটনার পর গুলশান ক্লাবের প্রেসিডেন্ট শওকত আজিজ ফেসবুকে দেয়া পোস্টে বলেছেন, এয়ার কানাডায় কখনোই ভ্রমণ করবেন না। মূলত আমার ৮ বছর বয়সী কন্যার আসন পরিবর্তন করে দেয়া হয়। যদিও তারাই বোর্ডিং পাস ইস্যু করে। আমি বারবার বলছিলাম বাচ্চাটিকে তার মায়ের সাথে আসন দিয়ে আসন পরিবর্তন করা হউক। তারা খোঁজ-খবর করে আমার ৮ বছরের মেয়ে ছাড়া আর কাউকেই সরানোর জন্য পায়নি। আমি পাইলটের সাথে কথা বলার  সুযোগ দাবি করি। কিন্তু তারা তা না করে আমাদের ফ্লাইট থেকে নামিয়ে দেয়। তারা তাদের নিয়মাবলী ব্যাখ্যা করতেও রাজি হয়নি।
ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, এয়ার কানাডা ক্রুদের সাথে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে পুলিশ ডাকা হয়। পুলিশ এসে তাদের নামিয়ে দেয়। লাইভ ভিডিওতে শওকত আজিজ রাসেলকে বাকবিতণ্ডায় লিপ্ত দেখা যায়।
ফেসবুক লাইভের আলাপ থেকে জানা যায়, এয়ার কানাডা ক্রুরা রাসেলের ৮ বছর বয়সী মেয়েকে অন্য আসনে সরিয়ে দিতে গেলে বিপত্তি দেখা দেয়। রাসেল তাতে সম্মতি দেয়নি। এক পর্যায়ে মেয়েটি বলে ’আই উইশ এয়ার কানাডা ব্লো। এর পরই এয়ার কানাডা তাদের নামিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এ সময় ক্রুদের ’এটি সেফটি ইস্যু ’ বলতে শোনা যায়। এয়ার কানাডা পুলিশ ডাকলে পুলিশের সাথেও তর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি।

ব্যবসায়ী শওকত আজিজ রাসেলকে প্লেন থেকে নামিয়ে দিলো এয়ার কানাডা (ভিডিও)
Logo
Print

বিশেষ প্রতিবেদন

 

 
বাংলাদেশের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শওকত আজিজ রাসেলকে স্বপরিবারে এয়ার কানাডার ফ্লাইট থেকে পুলিশ ডেকে নামিয়ে  দেওয়া হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কানাডার টরন্টো থেকে লন্ডনের যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে।
জানা গেছে, শওকত আজিজ রাসেল বাংলাদেশের  শীর্ষস্থানীয় শিল্পগ্রুপ ’পারটেক্স’ এর কর্ণধার আবুল হাসেমের ছেলে। পুরো ঘটনাটি রবিবার ফেসবুক লাইভে প্রচার করেন শওকত আজিজ রাসেল নিজেই।
ঘটনার পর গুলশান ক্লাবের প্রেসিডেন্ট শওকত আজিজ ফেসবুকে দেয়া পোস্টে বলেছেন, এয়ার কানাডায় কখনোই ভ্রমণ করবেন না। মূলত আমার ৮ বছর বয়সী কন্যার আসন পরিবর্তন করে দেয়া হয়। যদিও তারাই বোর্ডিং পাস ইস্যু করে। আমি বারবার বলছিলাম বাচ্চাটিকে তার মায়ের সাথে আসন দিয়ে আসন পরিবর্তন করা হউক। তারা খোঁজ-খবর করে আমার ৮ বছরের মেয়ে ছাড়া আর কাউকেই সরানোর জন্য পায়নি। আমি পাইলটের সাথে কথা বলার  সুযোগ দাবি করি। কিন্তু তারা তা না করে আমাদের ফ্লাইট থেকে নামিয়ে দেয়। তারা তাদের নিয়মাবলী ব্যাখ্যা করতেও রাজি হয়নি।
ভিডিওচিত্রে দেখা যায়, এয়ার কানাডা ক্রুদের সাথে বাকবিতণ্ডার এক পর্যায়ে পুলিশ ডাকা হয়। পুলিশ এসে তাদের নামিয়ে দেয়। লাইভ ভিডিওতে শওকত আজিজ রাসেলকে বাকবিতণ্ডায় লিপ্ত দেখা যায়।
ফেসবুক লাইভের আলাপ থেকে জানা যায়, এয়ার কানাডা ক্রুরা রাসেলের ৮ বছর বয়সী মেয়েকে অন্য আসনে সরিয়ে দিতে গেলে বিপত্তি দেখা দেয়। রাসেল তাতে সম্মতি দেয়নি। এক পর্যায়ে মেয়েটি বলে ’আই উইশ এয়ার কানাডা ব্লো। এর পরই এয়ার কানাডা তাদের নামিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এ সময় ক্রুদের ’এটি সেফটি ইস্যু ’ বলতে শোনা যায়। এয়ার কানাডা পুলিশ ডাকলে পুলিশের সাথেও তর্কে জড়িয়ে পড়েন তিনি।

Template Design © Joomla Templates | GavickPro. All rights reserved.