এবার বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে সুসংবাদ দিলেন নব নিযুক্ত ডিএমপি কমিশার

সম্প্রতি নির্বাচনকে সামনে রেখে রাজনৈতিক বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করছে দলগুলো। তবে এসব সভা-সমাবেশে পুলিশের বাধা ও আ/ক্রমনের স্বীকার হচ্ছে বিরোধী দলগুলো অভিযোগ করছে। যদিও পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে বিশৃঙ্খলা ঠেকাতে যেয়ে এমন ঘটনার সৃষ্টি হচ্ছে। দেশের মানুষের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা পুলিশের দায়িত্ব। কোন ধরনের রাজনৈতিক কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা দেবে না মন্তব্য করে যা বললেন নব নিযুক্ত ডিএমপি কমিশার খন্দকার গোলাম ফারুক।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) নবনিযুক্ত কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেছেন, নিবন্ধিত দলের রাজনৈতিক কর্মসূচিতে পুলিশ বাধা দেবে না।

তিনি বলেন, রাজনীতির নামে কেউ ফৌজদারি অপরাধ করলে তার বিরুদ্ধে পুলিশ প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা নেবে।

সোমবার (৩১ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর মিন্টু রোডে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত মিট দ্য প্রেসে তিনি এসব কথা বলেন।

মিট দ্য প্রেসে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, মিছিল-মিটিং রাজনৈতিক দলগুলোর অধিকার। নিবন্ধিত দলগুলির এই জাতীয় প্রোগ্রামগুলিতে কোনও বিধিনিষেধ আরোপ করা হবে না। কিন্তু রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে অ/গ্নিসংযোগ বা বিশৃঙ্খলা বরদাস্ত করা হবে না। এগুলো ফৌজদারি অপরাধ। এ ধরনের অপরাধের বিরুদ্ধে ধারা অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, থানাকে জনমুখী ও সেবামুখী করতে আমরা নানা পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। সেগুলো ঠিকমতো চলছে কি না বা জনগণ যথাযথ সেবা পাচ্ছে কিনা তা আমরা পর্যবেক্ষণ করছি।

এছাড়াও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) প্রতি শুক্রবার মসজিদে জুমার নামাজের আগে একটি বক্তৃতা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যাতে মানুষ অপরাধ থেকে বিরত থাকে।

তিনি বলেন, ৩২ বছরের চাকরি জীবনের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে ডিএমপি নগরবাসীর জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার চেষ্টা করব।

ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিষয়ে নবনিযুক্ত ডিএমপি কমিশনার বলেন, আগের অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে আমরা ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন এনে রাজধানীবাসীকে একটি যানজটমুক্ত শহর উপহার দেব। সড়কে চলছে বিভিন্ন সংস্থার উন্নয়ন কাজ, অপরিকল্পিত নগরায়নও যানজটের জন্য দায়ী।

তিনি বলেন, ট্রাফিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে বেশ কিছু সমস্যা আছে, সেগুলো সমাধান করে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার ব্যবস্থা করা হবে।

থানার সেবা সহজতর করার পরিকল্পনার বিষয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, থানা এলাকার মসজিদে নামাজ আদায়ের পর ওসিরা বলবেন, তার থানায় সেবা দিতে কোনো টাকা লাগে না। এ কথা বলার পর কারো ন্যূনতম লজ্জা থাকলে থানায় সেবা দিতে কেউ টাকা নেবে না।

ডিএমপি কমিশনার দাবি করেন, চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি থাকাকালে তিনি ৭৫ শতাংশ ই/য়াবা নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছেন, আমাদের একটি আন্তর্জাতিক সমস্যা আছে। মা/দকাসক্তদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে। তারপর সরবরাহ লাইন বন্ধ করতে হবে। দেশে মা/দকের চাহিদা না থাকলে তা এমনিতে কমবে যাবে।

তিনি বলেন, আমরা মা/দকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সঙ্গে কথা বলে মা/দক নিরাময় কেন্দ্রের সংখ্যা বাড়ানো এবং সেখানে সেবার মান বাড়াতে বলবো।

জ/ঙ্গি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে উল্লেখ করে ডিএমপি কমিশনার বলেন, বাংলাদেশে জ/ঙ্গিবাদ আগের মতো মাথা চাড়া দিয়ে উঠতে পারবে না। বিশ্বের অনেক দেশ স/ন্ত্রাস দমনে সফল না হলেও আমরা সফল হয়েছি। জ/ঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট এবং সরকারের অন্যান্য সংস্থা একসঙ্গে কাজ করছে।

প্রসঙ্গত, দেশের আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রনে ধারাবাহিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ বাহিনী মন্তব্য করেন নব নিযুক্ত ডিএমপি কমিশার খন্দকার গোলাম ফারুক। তিনি বলেন, দেশের মানুষ যাতে সহজে সেবা পেতে পারে সে জন্য কাজ করছে পুলিশ বাহিনী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *