আর এক টার্ম ফাকা মাঠে গোল আরেক টার্ম নৈশ ভোট করে নির্বাচন করার যে দক্ষতা দলটার ছিলো সেইটাও হারায়ে ফেলছে :পিনাকী

সরকার জোর করে ক্ষমতা থেকে দেশের ভোট ব্যবস্থাকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। যার ফলে দেশের জনগণ তাদের ভোটাধিকার হারিয়েছে। যার পরিপ্রেক্ষিত আগামী সংসদ নির্বাচনে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলছে বিদেশী রাষ্ট্রগুলো। বিগত দুটি নির্বাচনে যে সব ঘটনা ঘটেছে তার যেন পুনারাবৃত্তি না ঘটে এমন প্রত্যাশা করেছেন জাপানি রাষ্ট্রদূত। এমন তথ্য প্রকাশ হওয়ার পরও কি সরকার কাছে থেকে প্রত্যাশা করা যায় আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। বিষয়টি নিয়ে সা/মাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ/কটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন পিনাকী ভট্টাচার্য পা/ঠকদের জন্য হুবহু তু/লে ধরা হলো।

তো হাসিনার তো সমুহ বিপদ। জাপানী রাষ্ট্রদুত বলছে উনি জিন্দেগীতে শোনেন নাই কোন দেশের পুলিশ রাইতে ব্যালট বাক্স ভইর‍্যা থোয়। যা হাসিনা করছে। কানাডার রাষ্ট্রদুতের সাথে মির্জা ফকরুল রুদ্ধদার বৈঠক করছে।

হাউ ডিক্টেটরশিপ ওয়ার্ক।।মানে স্বৈরশাসন কীভাবে কাজ করে। একজন ভবিষ্যৎ স্বৈরশাসকের জন্য খুব কাজের ম্যানুয়ল। কীভাবে স্বৈরশাসক তৈরি হয়, কীভাবে সে কাজ করে, কীভাবে সে রাষ্ট্রযন্ত্রকে অনুগত বানিয়ে ফেলে, কীভাবে সে ইন্সটিটিউটগুলে ধ্বংস করে ফেলে। একেবারে একটা ক্লাসিক ম্যানুয়াল যেন হাসিনার শাসন দেখে দেখে বইটা লিখছে।

হাসিনা তো নির্বাচনে ভয় পায়, ঢাকায় সাদেক হোসেন খোকা আর মেজর মান্নানের কাছে গো হারা হারার পর থেকে উনার মাথায় নির্বাচন ফোবিয়া ঢূইক্যা গেছে। আর এক টার্ম ফাকা মাঠে গোল আরেক টার্ম নৈশ ভোট করে নির্বাচন করার যে দক্ষতা দলটার ছিলো সেইটাও তারা হারায়ে ফেলছে।

প্রসঙ্গত, সরকার আবারও বিনা ভোটে ক্ষমতায় আসার যে পরিকল্পনা তৈরী করেছে সেটি সম্ভব নয় মন্তব্য করেন পিনাকী ভট্টাচার্য। তিনি আরও বলেন, সরকারের সকল অপর্ককান্ড একে একে ধরা পড়ছে যার জন্য আরও কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে পারে সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *