গত কয়েক সপ্তাহ ধরে ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা দেশের নির্বাচন নিয়ে নানা রকম বক্তব্য দিয়ে চলেছেন। এছাড়া তার নিজ এলাকায় অন্য রাজনৈতিক দল খারাপ লোক ভাড়া করে আনছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি। তার এই সকল বক্তব্য নিয়ে দেশের অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তি মুখ খুলছেন। তেমনি এবার ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা নিয়ে মুখ খুলেছেন জয়নাল হাজারী। তিনি তার সম্পর্কে বেশ কিছু কথা বলেন।
নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়রপ্রার্থী এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জার বক্তব্যগুলো সত্য বলে দাবি করেছেন ফেনীর আলোচিত সাবেক এমপি জয়নাল হাজারী। তিনি বলেন, মির্জা কাদের প্রমাণ করেছে দেশে বাক-স্বাধীনতা আছে।

বৃহস্পতিবার রাতে ফেসবুক লাইভে এসে জয়নাল হাজারী বলেন, মির্জা কাদের সত্য কথা বলেছেন। কিন্তু ওবায়দুল কাদের সাহেব যে কারণেই হোক ত্রাণ কমিটির মিটিংয়ে বলেছেন, দলের শৃঙ্খলা ভঙ্গ করলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না, তার শাস্তি হবে। মির্জা দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেননি, আপনাকে (কাদের) বা প্রধানমন্ত্রীকেও খারাপ বলেননি। তিনি দলের ভেতরে থাকা দুর্নীতিবাজদের বিচার চেয়েছেন। এই দুর্নীতিবাজরা আপনার ও নেত্রীর সুনাম নষ্ট করছেন। পা’পী’য়া তো দলের নেত্রী ছিলেন, সম্রাট, আরমানসহ অনেকেই অপরাধ করে আজ কারাগারে।

তিনি আরো বলেন, মির্জা প্রমাণ করেছেন বাংলাদেশে এখনো বাক-স্বাধীনতা রয়েছে, আছে সংবাদপত্রের স্বাধীনতা। আমার বিশ্বাস মির্জার বক্তব্যের কারণে বাংলাদেশের রাজনীতির দৃশ্য পরিবর্তন হয়ে গেছে।

হাজারী আব্দুল কাদের মির্জাকে বীরপুরুষ আখ্যায়িত করে সব সাংবাদিকের সমালোচনা না করার পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, সব সাংবাদিক চাঁদা খান না। তাদের জীবনেরও ঝুঁ/কি রয়েছে।


উল্লেখ্য, ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই আবদুল কাদের মির্জা দেশের নির্বাচন নিয়ে নানা রকম প্রশ্ন তোলেন। আর এই কারণে তাকে নিয়ে দলের মধ্যেও নানা রকম আলোচনা চলছে। তবে তিনি বলেছেন তিনি সত্য কথা বলতে পিছুপা হবেন না। আর এই সত্য কথা বলার জন্য তার জীবনে বড় রকমের বিপদও আসতে পারে বলেছেন তিনি।