বাংলাদেশ একটি উন্নয়নশীল দেশ যা অনেকেই জানে এবং মেনে নিচ্ছে কিন্তু এটা সত্যি যে বাংলাদেশের মানুষ হুট করে কোনো বড় ধরনের পরিবর্তন মেনে নিতে পারে না বা অভ্যস্ত নয়। বাংলাদেশ একটি গনতান্ত্রিক দেশ এবং এখানে দলীয়ভাবে সরকার গঠিত হয়ে থাকে। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ অনেকটা রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনা না করেই সেই দলীয় সরকারকে দোষারোপ করতে শুরু করে। বর্তমানে দেশে যে সকল প্রধান দল রয়েছে বিশেষ করে বিরোধী দল তারা অনেকটা অকারনে ক্ষমতাসীন দলকে নিয়ে বিভিন্ন কথা বলে রাজনীতির মাঠকে উত্তপ্ত করে তোলার চেষ্টা চালায়। এবার অনেকটা সেরকমই মন্তব্য করেছেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান জিএম কাদের।
বাংলাদেশের মানুষ একই সরকারকে বেশি দিন ক্ষমতায় দেখতে চায় না বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। তিনি বলেছেন, বাংলাদেশের মানুষ সরকার পরিবর্তনে বিশ্বাসী। তারা একই সরকার বেশি দিন চায় না। এটা তাদের অভ্যাস। কিন্তু মানুষ সরকার পরিবর্তন চাইলেও কার্যক্রমের পরিবর্তন চায়। আর কার্যক্রমের পরিবর্তর চাইলে মানুষ জাতীয় পার্টিকে চায়।

তিনি বলেন, জাতীয় পার্টিকে সুসংহত ও শক্তিশালী করতে হলে যোগ্য নেতৃত্ব গড়ে তুলতে হবে। যাকে দেখে মানুষ জাতীয় পার্টিকে চিনবে, সম্মান করেবে, সেই নেতা হবে।

শনিবার এশিয়ার সর্ববৃহৎ শপিংমল রাজধানীর যমুনা ফিউচার পার্ক কনভেনশন সেন্টারের ’মহল’ হলে জাতীয় পার্টির ঢাকা জেলা সম্মেলনে সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জিএম কাদের বলেন, অনেক জায়গায় দল সুসংগঠিত হলেও সেখানে যোগ্য নেতা নেই। সেখানে যোগ্য নেতৃত্ব গড়ে তুলতে হবে।

জাতীয় পার্টি বাংলাদেশের এক নম্বর দল উল্লেখ করে তিনি বলেন, জাতীয় পার্টি বাংলাদেশের এক নম্বর দল। কিন্তু ৯১ পর তৎকালীন সরকার জাতীয় পার্টির ওপর অনেক নিপীড়ন ও ‍নির্যাতন চালিয়েছে। জাতীয় পার্টিকে সভা করতে দেয়া হয় নাই, ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে, মিছিলে টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ ও লাঠিচার্জ করা হয়েছে ও বিভিন্নভাবে হয়রানি করে গ্রেফতার করা হয়েছে।

জিএম কাদের তার নিজের দলের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, দলের প্রতি যে সকল নির্যাতন-নিপীড়ন করা হয়েছে তার পরও জাতীয় পার্টির মত একটি শক্তিশালী দল কখনও সাংগাঠনিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত বা দূর্বল হয়ে পড়েনি। জাতীয় পার্টি বর্তমানে বাংলাদেশের একটি অন্যতম শক্তিশালী রাজনৈতিক দল। এই দল দিনে দিনে মানুষের মনের কোঠায় শক্ত অবস্থান তৈরী করে নিচ্ছে।

জিএম কাদের আরও যোগ করে বলেন, আজ জাতীয় পার্টিকে মানুষ দেশ পরিচালনার দায়িত্বে দেখতে চায় এবং এই দল দেশ পরিচালনার করার স্তরে উন্নীত হয়েছে। বাংলাদেশের মানুষ এখন বুঝতে সক্ষম যে আমাদের এই দলটি এখন দেশের পরিস্থিতি বদলাতে পারবে এবং জনগণ এখন পরিবর্তন চায়। জনগণ এখন জাতীয় পার্টির মত দলকে পরিবর্তনের আস্থা হিসেবে বিবেচনা করে।