বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, বেগম খালেদা জিয়া বিএনপি সরকারে থাকার সময় সকল সমস্যা যেভাবে মোকাবেলা করেছেন, তা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা করতে পারছেন না। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার মতো ডিপ্লোমেটিক দূরদর্শিতা নেই বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর।
তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী যখন ভারতে পাক্ষিক আলোচনার জন্য
গিয়েছেন তখন শুনেছি তিস্তার পানিবন্টন মূল বিষয়বস্তু, দেশের সীমান্তে মানুষ মারা বন্ধ ও আসামের এনআরসি তালিকা নিয়ে আলোচনা। তবে এখন দেখছি ভারত ও বাংলাদেশের দ্বিপাক্ষিক আলোচনার বিষয়বস্তু হচ্ছে পিঁয়াজ। এমনকি পিঁয়াজ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নিজে একটি অনুষ্ঠানে রসিকতা করছেন। এটা ভাবতেও লজ্জা লাগে।


শনিবার (৫ অক্টোবর) জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে জিয়া শিশু কিশোর মেলা কেন্দ্রীয় সংসদ আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, ’প্যারিসে হামলা হয়েছে আর আমাদের বিনোদন বালক আওয়ামী লীগ সরকারের তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন- এর সাথে বিএনপি জড়িত কিনা তা খতিয়ে দেখা হবে। সবকিছুতে যদি এভাবে বিএনপিকে দেখতে পান তবে আমার ভয় হয় কবে জানি বলে ওঠেন আওয়ামী লীগ তিনবার ক্ষমতায় থাকার জন্য বিএনপি ও জিয়াউর রহমান দায়ী।’


তিনি বলেন, ’বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানকে যত প্রকার কষ্ট দেয়ার তা এই সরকার দিচ্ছে। শহীদ জিয়াউর রহমানকে খাটো করার জন্য যত প্রকার নোংরামি করার তাও এই সরকার করছে। কিন্তু শহীদ রাষ্টপ্রতি জিয়াউর রহমান তার জীবনে কখনো শেখ মুজিবুর রহমানকে অসম্মান করেননি। শহীদ জিয়াউর রহমান তার অনেক বক্তব্যতে শেখ মুজিবুর রহমানকে জাতীয় নেতা হিসেবে উল্লেখ করেছেন।’

আলাল আরও জানান, আমরা আজকে যার মুক্তির জন্য এখানে প্রতিবাদ সভা করছি আমাদের সেই নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া যখন ক্ষমতায় ছিলেন তখন নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর বাবা শেখ মুজিবুর রহমানের মাজার জিয়ারত করেছিলেন। খালেদা জিয়া সরকারে থাকার সময় বিরোধীদলীয় নেত্রী শেখ হাসিনার অনুরোধে হাসপাতাল করে দিয়েছিলেন গোপালগঞ্জে। আর সেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কথায় কথায় এখন বেগম খালেদা জিয়া ও শহীদ জিয়াউর রহমানকে খাটো করে কথা বলেন। এর মাধ্যমে প্রমাণিত হয় বিএনপির মধ্যে যে রাজনৈতিক মূল্যবোধ বা শিষ্টাচার রয়েছে তা আওয়ামী লীগের মধ্যে একদমই নেই।

জিয়া শিশু কিশোর মেলা কেন্দ্রীয় সংসদের আহবায়ক জাহাঙ্গীর শিকদারের সভাপতিত্বে এই সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সাদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। এছাড়া আরও নেতাকর্মী সেখানে উপস্থিত ছিলেন।