গত শনিবার রাতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার ও সংসদীয় মনোনয়ন বোর্ডের যৌথসভায় নিজেই অভিযোগের কথা তোলেন। তখন সেখানে যোগ দেয়া আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতারাও প্রধানমন্ত্রীর সাথে একমত প্রকাশ করেন।
সেখানে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ উপস্থিত ছিলেন। তিনি একটি গনমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে জানান, বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ছাত্রলীগের বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ড নিয়ে।

তিনি বৈঠকের শুরুতেই উপস্থিত নেতাকর্মীদের সামনে অভিযোগের কথা বলেন। তখন তিনি প্রায় ১২ থেকে ১৬ মিনিট ছাত্রলীগের বিভিন্ন কর্মকান্ড সম্পর্কে কথা বলেন। তিনি অনেকটা ক্ষুব্ধ হয়ে ছাত্রলীগের কমিটি
ভেঙে দেয়ার কথা বলেন। কিন্ত প্রধানমন্ত্রী তখন কি বুঝাতে চেয়েছেন সে সম্পর্কে আমি পরিষ্কার ভাবে কিছু বলতে পারবো না। তিনি সেখানে উপস্থিত নেতাদের সে সম্পর্কে দায়িত্ব দিয়েছেন। তারা সঠিক ভাবে তদন্ত করে অভিযোগগুলোর ব্যাপারে ব্যবস্থা নেবেন। বিষয়টি তারাই এখন দেখছেন।