জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আজ সোমবার শেরেবাংলা নগরে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপাকালে ফখরুল বলেন, এরশাদের মতোই গৃহপালিত বিরোধী দলীয় নেতা রওশন।
রোববার (৮ সেপ্টেম্বর) সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা এরশাদের জন্য শোক প্রস্তাবের আলোচনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৮২ সালে এরশাদকে ক্ষমতা দখল করার সুযোগ করে দিয়েছিলেন খালেদা জিয়া। এ কারণেই তিনি খালেদা জিয়াকে শুধু দু’টি বাড়িই নয়, নগদ ১০ লাখ টাকাসহ অনেক সুযোগ-সুবিধা দিয়েছিলেন।

এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপি মহাসচিব বলেন, তিনি (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) সংসদে এ ধরনের অসত্য কথা প্রায়ই বলেন। যে কথার কোনো ভিত্তি নেই। ইতিহাস সাক্ষ্য দেয় না। বরং সত্য হচ্ছে এটাই একজন নির্বাচিত রাষ্ট্রপতিকে সরিয়ে দিয়ে এরশাদ যখন রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করেন, তখন তিনি (শেখ হাসিনা) ভারত সীমান্তে বলেছিলেন, আই অ্যাম নট আনহ্যাপি, অর্থাৎ তিনি অখুশি নন। পরবর্তীকালে তার কাজ দেখেই আমরা বুঝতে পারি, তিনি এরশাদকে সঙ্গে নিয়েই এই দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করেছেন, মানুষের অধিকারকে কেড়ে নিয়েছেন। যেটাকে আমরা সবসময় বলি, এরশাদ ছিলেন শেখ হাসিনার গৃহপালিত বিরোধীদলীয় নেতা।

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে এবং প্রতিহিংসা মনোভাব নিয়ে আটকে রেখেছে এই সরকার। বিএনপি মহাসচিব জানান নেতাকর্মী ও সাধারণ জনগণকে সাথে নিয়ে জেল থেকে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আবারও গনতন্ত্র ফিরিয়ে আনবো।