ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা বিএনপির নেত্রী। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বিএনপির রাজনীতির সাথে রয়েছেন। বর্তমানে বিএনপির যে সমস্যা চলছে তা থেকে দলকে বের করে আনতে ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা অনেক চেষ্টা করে যাচ্ছেন। এছাড়া তিনি বিভিন্ন সময় বর্তমান ক্ষমতাসীন দল সম্পর্কে নানা রকম কথা বলে থাকেন। এবার তিনি আওয়ামী লীগ ও দেশের সমসাময়িক ঘটনা সম্পর্কে কথা বলেছেন।
বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য আইনজীবী ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বেশ সরব। তিনি সম্প্রতি আওয়ামীবাদ নিয়ে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন ফেসবুকে। শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) তিনি নিজের ফেসবুক পেজে এই স্ট্যাটাস দেন। তার স্ট্যাটাসটি পাঠকদের জন্যে তুলে ধরা হলো: কোনো আওয়ামী লীগের সাপোর্টারকে আমি বাই ডিফল্ট মূর্খ বলে ধরে নেই। কেউ কেউ মূর্খতার পরীক্ষা পাশ করেন কিন্তু গুণ্ডামি, লুণ্ঠণ করেন নাই কিংবা এই ধরনের কর্মকাণ্ডকে কামনা করে না এমন কোনো আওয়ামী আমি জীবনে দেখি নাই। চেয়ার দিয়ে স্পীকারকে শেষ করা এই দলের আদি ঐতিহ্য। শুরু থেকেই আদিম, আনসফিষ্টিকেটেড, প্রভিন্সিয়াল, জান্তব, ভায়োলেন্ট মানুষরা আওয়ামী লীগের ছায়াতলে এসেছে – এখনো তাই হয়। আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতা থেকে ভোটার পর্যন্ত প্রত্যেকেই একই রকম ভায়োলেন্ট – কারো কারো এখনো সুযোগ আসে নাই প্রকাশ করবার।

আরিফ জেবতিক আওয়ামী লীগের একজন আগুয়ান ফুট সোলজার বলে ধারণা আছে ফেসবুকে। সংগ্রাম পত্রিকা কাদের মোল্লাকে শহীদ বলায় আরিফ জেবতিকের কলীগরা যে সংগ্রাম অফিসে যে ঘটনা ঘটিয়েছে – সেটা তিনি তীব্রভাবে সমর্থন করেন। আমি ওনাকে পছন্দ করি এজন্যে যে আরিফ তার আওয়ামীত্ব লুকান না। পৃথিবীর যেকোনো কোনায় যে কোনো আওয়ামী এই ঘটনা ঘটালে একইভাবে সমর্থন করবে বলে আমার বিশ্বাস- অনেকেই মুখ ফুটে বলতে লজ্জা পান। আরিফদের যুক্তিটা হচ্ছে আমরা তো আর যে কাউকে এই ঘটনায় সমর্থন করছি না। রাজাকারকে শহীদ বললে তার সাথে হাতাহাতি করা জায়েজ আছে। ফ্রম রিলিজিয়াস পয়েন্ট অফ ভিউ – যে পয়েন্ট অফ ভিউ থেকে পত্রিকাটা চলে বলে পত্রিকার দাবী – কাদের মোল্লা যে একজন শহীদ – এই ব্যাপারে বিন্দুমাত্র তর্ক নাই।

আরিফ যেহেতু রিলিজিয়াস পয়েন্ট অফ ভিউকে ধর্তব্যে আনবেন না এবং যেহেতু তিনি তার নিজের মতকে সবার মতের ওপর স্থান দিতে অভ্যস্ত সেহেতু তিনি ভিন্ন মতের মানুষের সাথে হাতাহাতি করা হলে স্বস্তি পান। এই লোকটাকে ক্ষমতা দেন – এবং উপযুক্ত পরিবেশে ফেলেন – সে আপনাকে শেষ করতে পারবে। আপনারা যারা আমার এই অনুমানে বিন্দুমাত্র সন্দেহ পোষণ করেন – তারা মিলগ্রাম এক্সপেরিমেন্টটা ভালো করে ফলো করবেন। নিজের মনে আমার কোনো সন্দেহ নেই যে এখনো যারা আরিফের মতো আওয়ামীবাদী তারা যেই লিবারেল ভ্যালুজের কথা বলেন প্রায়ই – সেগুলো পিওর ভণ্ডামী। আওয়ামীবাদ একটা গোত্রবাদ – মানুষ হতে হলে এই নীচতা পরিহার করুন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য আইনজীবী ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা এর আগেও ক্ষমতাসীন দল সম্পর্কে কথা বলেছেন। তবে তিনি দলের জন্য কথা বলতে সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য হয়েছেন। এরপর তিনি সংসদে যেয়ে বিএনপির সম্পর্কে ও ক্ষমতাসীন দল সম্পর্কে নানা রকম কথা বলে থাকেন। এই নেত্রী চান বিএনপিকে আবারও চাঙ্গা করতে। এ জন্য তিনি বিএনপির জন্য কাজ করে যাচ্ছেন।