করোনা ভাইরাস নিয়ে যখন বিশ্বের সকল মানুষ দিশেহারা হয়ে পড়েছে এর এই সময় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের গবেষকরা এই ভাইরাসের কার্যকারি ভ্যাকসিন তৈরি করার জন্য নিরলশ চেষ্টা করে যাচ্ছে।. তবে এখনো কার্যকারি ভ্যাকসিন আবিস্কার করা না গেলেও কিছু ওষুধ দিয়ে চিকিৎসকরা করোনা ভাইরাস নির্মূল করার চেষ্টা করছে। আর সেই অনুযায়ী বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বেশ কয়েকটি ওষুধ করোনা ভাইরাসের চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে। তবে এবার একটি ওষুধ নিয়ে বেশ আলোচনা দেখা দিয়েছে। এই ওষুধটি করোনায় সংক্রমিত রোগীদের প্রয়োক করে ভালো ফল পাওয়া যাচ্ছে বলেন অনেক চিকিৎসক।


করোনা ভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত গুরুতর অসুস্থ রোগীদের চিকিৎসায় মৌলিক স্টেরয়েড ব্যবহারে ’জীবনরক্ষায় বৈজ্ঞানিক ব্যাপক সাফল্য’ অর্জনের জন্য ব্রিটেনকে অভিনন্দন জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। গবেষণায় দেখা গেছে, এ ওষুধ ব্যবহার করা গুরুতর রোগীদের এক-তৃতীয়াংশ প্রাণে বেঁ’চে গেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান টেড্রস আধানোম গ্রেব্রেয়েসাস বলেন, এটি একটি বড় খবর। আমি যুক্তরাজ্য সরকার, অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি এবং জীবনরক্ষায় বিজ্ঞানসম্মত এই ব্যাপক সাফল্য অর্জনে অবদান রাখা বিভিন্ন হাসপাতাল ও রোগীদের অভিনন্দন জানাচ্ছি।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, এই ওষুধ করোনার চিকিৎসায় গুরুত্বর অসুস্থ রোগীদের জীবন রক্ষা করতে সক্ষম। মূলত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত যেসব রোগীর ভেন্টিলেশন ও অক্সিজেনের প্রয়োজন হয়, সেসব রোগীর জীবন বাঁ’চাতে এ ওষুধ অত্যন্ত কার্যকর। এটা এক ধরনের স্টেরয়েড। তবে করোনার মৃ’দু উপসর্গযুক্ত রোগীদের ক্ষেত্রে এই ওষুধ ব্যবহারের প্রয়োজন নেই।

গত ডিসেম্বর মাসের শেষের দিকে চীনের উহান নগরীতে প্রথম এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়ার পর থেকে বিশ্বে এ পর্যন্ত প্রায় ৪ লাখ ৪০ হাজার মানুষ কোভিড-১৯ ভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছে।সুত্র:ইত্তেফাক

এদিকে, করোনা ভাইরাসের এখন পর্যন্ত কোন দেশে কার্যকরী ভ্যাকসিন আবিষ্কার করা যায়নি। তবে কয়েকটি দেশে করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরি করা হয়েছে যা নিয়ে এখনো অনেক পরীক্ষা চলছে। আর এই সময় করোনা রোগীদের চিকিৎসার জন্য এই ওষুধটি প্রয়োক করা হচ্ছে। এতে করোনায় সংক্রমিত রোগীরা অনেকটা সুস্থ হয়ে উঠছে বলেন চিকিৎসকরা। তবে করোনায় প্রথম জীবনরক্ষাকারি ওষুধ যেন কেউ চিকিৎসকরে পরামর্শ ছাড়া গ্রহণ না করে সে দিকে সবাইকে খেয়াল রাখতে বলা হয়েছে। করোনায় সংক্রমিত রোগীদের চিকিৎসার জন্য যে কোনো ওষুধ ব্যবহার করার আগে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে বলা হয়েছে।