মধ্যপ্যারের দেশ কাতারে অসংখ্য প্রবাসী বাংলাদেশি রয়েছে যারা সে দেশে অনেক সুনামের সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। এমনকি অনেক সময় প্রবাসী বাংলাদেশি সে দেশে মানবিক কাজের মাধ্যমে ব্যাপক প্রসংশিত হয়েছেন। এবার তেমনি এক প্রবাসী বাংলাদেশি কাতারে মানবিক কাজের মাধ্যমে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছেন একই সাথে তাকে ওই কাজের জন্য সম্মাননা দিয়েছে দেশটির সরকার। তার একটি ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথে প্রশংসায় ভাসেন এই প্রবাসী বাংলাদেশি।

কাতারের রাজধানী দোহায় ব্যস্ততম সড়কে এক বয়স্ক প্রতিবন্ধীকে রাস্তা পারাপারে সহযোগিতা করায় প্রবাসী বাংলাদেশি মোহাম্মদ ইয়াসিনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। পরে এই মানবিক কাজের জন্য কাতার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তাকে সম্মান জানিয়েছে।

বাংলাদেশের লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ উপজেলার নোয়াগাঁ গ্রামের মোহাম্মদ ইয়াসিন ২০১৮ সালে জীবকার তাগিদে কাতার যান। তারপর দীর্ঘদিন সংগ্রাম করে একটি মোটরসাইকেল লাইসেন্স অর্জন করেন এবং ফুড ডেলিভারি এজেন্ট ’তালাবাতে’ কর্মজীবন শুরু করেন।

তালাবাত ইয়াসিনকে নিয়ে একটি ছোট ভিডিও তৈরি করেছে। সেখানে ইয়াসিন ওই ঘটনার বর্ণনা দেন। ওই ভিডিওতে ইয়াসিন বলেন, ’লোকটি কোথা থেকে এসেছে তা আমি নিশ্চিত নই। আমি ম্যাকডোনাল্ডস থেকে একটি অর্ডার রিসিভ করছিলাম, তখন পাশের রাস্তা বেশ ঝুঁকিপূর্ণ ও দ্রুত চলমান ট্রাফিক ছিল। একজন প্রতিবন্ধী বৃদ্ধ রাস্তা পার হতে চেষ্টা করছিলেন কিন্তু তিনি পেছন থেকে কিছুই দেখতে পাচ্ছিলেন না। তখন আমি তাকে সাহায্য করতে এগিয়ে যাই। আমি আমার মোটরবাইকটি রাস্তার পাশে পার্ক করেছিলাম এবং তাকে জিজ্ঞাসা করলাম তিনি কোথায় যেতে চান। তিনি রাস্তার শেষের দিকে ইঙ্গিত করলেন এবং আমি তাকে রাস্তাটি অতিক্রম করতে সহায়তা করি। ভদ্রলোক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন এবং আমাকে ধন্যবাদ জানান।

ইয়াসিন জানান, এই ছবিগুলো তার অজান্তেই কেউ ধারণ করে এবং গত সপ্তাহে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তা আপলোড করে। সেখান থেকে ছবিগুলো ভাইরাল হয়।

ইয়াসিন বলেন, ’আমার খুব ভালো লেগেছে কারণ আমি কাউকে সাহায্য করতে পেরেছি এবং সে খুব খুশি হয়েছিল। আমার বাবা প্রায়ই আমাকে বলতেন, তুমি যদি কাউকে সাহায্য করো তবে কেউ না কেউ তোমাকে সাহায্য করবে।’

ইয়াসিন আরও জানান, এই ঘটনার পর তিনি কাতারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ফোন পেয়েছিলেন। ’আমি যা করেছি তার জন্য তারা আমাকে ধন্যবাদ জানায় এবং উপহার হিসেবে তারা আমাকে একটি হেলমেট, একজোড়া জুতা ও একটি জ্যাকেট দিয়েছে।’

একজন প্রবাসী বাংলাদেশী কর্মীর মানবিক কাজের প্রশংসা করে কাতারস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের শ্রম কাউন্সিলর ড. মুহাম্মদ মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ’আমার আগের কর্মস্থল জাপানে দেখেছি মানুষ একে অপরকে সাহায্যের মনোভাব নিয়ে সবসময় নিজেকে প্রস্তুত রাখে, যা কাতারে এসেও পেলাম।’

তিনি বলেন, ’আমাদের বাংলাদেশি নাগরিক মোহাম্মদ ইয়াসিন এর একজন প্রতিবন্ধীকে রাস্তা পারাপারে সাহায্য করার বিষয়টি আমার নজরে এসেছে যা কাতারে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে সহায়তা করবে। কাতারের জনগণ ও কাতার সরকারের কাছে আমাদের বাংলাদেশি নাগরিকদের নিয়ে ভালো ধারণা সৃষ্টি হবে। সর্বোপরি মুহাম্মদ ইয়াসিনের এই মানবিক কাজ বাংলাদেশের জন্য গৌরবের বিষয়।’

এদিকে ’তালাবাত’ ফুড ডেলিভারি প্রতিষ্ঠান মোহাম্মদ ইয়াসিনকে একজন রাইডার থেকে একজন রাইডার ক্যাপ্টেনের পদোন্নতিও দিয়েছেন। এখন তিনি চালকদের একটি বহর পরিচালনা করবেন।

এদিকে, এই প্রবাসী বাংলাদেশিকে নিয়ে তার কর্মস্থলে ব্যাপক আলোচনা চলছে। তার ওই কাজের জন্য সকলে প্রাবসী বাংলাদেশির প্রসংশা করছেন। সবাই বলছেন এর কাছ থেকে আমারা সবাই মানবতার শিক্ষা নিতে পারি। আর এই প্রবাসী বাংলাদেশির এই কাজের জন্য সেখানে অবস্থানত অন্য বাংলাদেশিরা অনেক সম্মান পাচ্ছেন যা বাংলাদেশের জন্য গৌরবের বিষয়।