বর্তমান বিশ্বের মানুষের কাছে একটি ভয়ের নাম করোনা ভাইরাস। এই করোনা ভাইরাস এরই মধ্যে বিশ্বের প্রায় ১৬২ টির অধিক দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এমনকি, বিশ্বের উন্নত দেশ গুলোতেও ব্যাপক ভাবে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে। যার কারণে বিশ্বের উন্নত দেশ গুলো করোনা ভাইরাস মোকাবেলার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। এদিকে, কানাডায় করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কায় দেশটির সরকার অনেক কাজ করছে।

বিভিন্ন দেশের মতো কানাডাতেও করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর স্ত্রী সোফি গ্রিগোইরি ট্রুডো করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ কারণে জাস্টিন ট্রুডো নিজেও ১৪ দিনের জন্য আইসোলেশনে আছেন।

কানাডায় নতুন করে আরও ১৫৭ জন করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৫৯৮। নতুন করে মারা গেছে ৪ জন অর্থাৎ এখন পর্যন্ত মোট প্রাণনাশের সংখ্যা ৮। অপরদিকে ১২ জন চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এমন পরিস্থিতিতে জনগণের উদ্দেশে ভাষণ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো।

এক হৃদয়বিদারক ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রিয় কানাডাবাসী, আমি জানি আজ সবাই কঠিন সময় পার করছেন। আশা করি এই বিপদ আমরা কাটিয়ে উঠব। তবে সেজন্য আমার আপনাদের সাহায্য দরকার।

আপনাদের জন্য আমি আজ প্রধানমন্ত্রী, জনগনের সেবা ও নিরাপত্তা দেয়া আমার প্রধান কাজ, আমি চাইলে নিজে ঘরে বন্দি থাকতে পারতাম, তবুও ঝুঁকি নিয়ে আপনাদের খোজ খবর নিচ্ছি, বের হচ্ছি। কারন আপনারাই আমার অক্সিজেন। আপনারা সুস্থ থাকলেই আমি সুস্থ। আপনাদের থেকে গুরুত্বপূর্ণ আমার কাছে কিছুই নেই।

আপনাদের কাছে অনুরোধ আপনারা এক মাস নিজ বাসায় অবস্থান করুন। শুধু মাত্র ওষুধ এবং প্রয়োজনীয় খাবার, পানীয়র দোকানগুলো খোলা রাখবেন। তবুও সরকারের পক্ষ থেকে প্রতিটি নাগরিকের বাসায় এক মাসের যাবতীয় সব ধরনের খাবার, পানি, মেডিসিন মাস্ক আমরা পৌঁছে দিচ্ছি। তাছাড়া আপনাদের যখন যা লাগে সহযোগিতার জন্য দেয়া নাম্বারে যোগাযোগ করবেন। আপনাদের বাসায় সবকিছু পৌঁছে দেয়া হবে। তবুও বের হবেন না।

ভয় নেই কাউকে অনাহারে প্রাণ হারাতে হবে না। আপনারা নিজ বাসায় অবস্থান করুন, সচেতন থাকুন। আপাতত আমাদের দেশ অবরুদ্ধ (লক ডাউন) হয়ে যাচ্ছে। পরিস্থিতি ঠিক হলে আবার সবকিছু আগের অবস্থায় ফিরে যাবে। আমার উপর আপনারা আস্থা রাখুন।

আপনারা যারা অফিস আদালত কিংবা অন্য প্রতিষ্ঠানে কাজে নিয়োজিত ছিলেন আপনাদের কারো কাজে যেতে হবে না। সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, অফিস, কারখানা বন্ধ ঘোষণা করলাম।

ভয় নেই, আপনাদের সবার একাউন্টে আপনাদের মাসিক বেতনের টাকা পৌঁছে যাবে। শুধু তাই নয় আপনারা যারা ভাড়া বাসায় থাকেন সেই ভাড়াও সরকার বহন করবে। এসব নিয়ে একটুও চিন্তিত হবার কারন নেই। আপনাদের ভালো রাখাই আমার কাজ। যারা সরকারের নিয়ম মানবে তাদের এক কালীন অতিরিক্ত অর্থ পুরস্কার দেয়া হবে।

করোনা আজ পুরা দুনিয়ার এক আতঙ্কের নাম। আপনাদের সবার সহযোগিতা দরকার। আপনারা কেউ ঘর থেকে বের হবেন না। বাসায় থাকুন এবং সচেতনার সঙ্গে থাকুন। আশাকরি শিগগিরই আমরা এই সঙ্কট কাটিয়ে উঠব। এজন্য দয়া করে আপনারা আমাকে সহযোগিতা করুন।

এভাবে সবার উদ্দেশে নিজের অভিব্যক্তি প্রকাশ করেছেন ট্রুডো। একই সঙ্গে এই সঙ্কটময় পরিস্থিতিতে তার সরকার যে জনগণের পাশে আছে বার বার তিনি সেটা মনে করিয়ে দিয়েছেন এবং সবাইকে চিন্তিত না হওয়ার অনুরোধ করেছেন।

উল্লেখ্য, গত বছরের শেষের দিকে চীনে প্রথম করোনা ভাইরাস দেখা দেয়। এরপর থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। এদিকে, ইউরোপের একটি দেশ ইতালি যেখানে করোনা ভাইরাস ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। করোনা ভাইরাসের কারণে দেশটিতে শত শত মানুষের প্রাণনাশ হয়েছে। তবে কানাডায় করোনা ভাইরাস যেন ছড়িয়ে পড়তে না পারে এজন্য কানাডার সরকার এরই মধ্যে বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করছে।