প্রতিবছর বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে অনেক শিক্ষার্থী ব্রিটেনে ডিগ্রি অর্জনের জন্য যেয়ে থাকেন। বিদেশি শিক্ষার্থীরা স্নাতক ডিগ্রি অর্জনের পর কর্মসংস্থানের জন্য দুই বছর ব্রিটেনে থাকতে পারবেন। নতুন প্রস্তাবনা অনুযায়ী ব্রিটিশ হোম অফিসের ঘোষণা দিয়েছেন। নতুন এ সিদ্ধান্তের কারণে ২০১২ সালে তৎকালীন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী থেরেসা মে’র করা নিয়মকে একদম পরিবর্তন করে দেয়া হচ্ছে। থেরেসা মে তখনকার সময় নিয়ম করেছিলেন যে, স্নাতক ডিগ্রী অর্জনের পর বিদেশি শিক্ষার্থীরা যুক্তরাজ্যে চার মাসের বেশী থাকতে পারবে না।

দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, নতুন পরিবর্তন শিক্ষার্থীদের নিজেদের সক্ষমতা বুঝতে এবং যুক্তরাজ্যে নিজেদের পেশা গড়ে নিতে সহায়ক হবে।

জানা যায়, সেসব শিক্ষার্থীরা আগামী বছর থেকে যুক্তরাজ্যে স্নাতক পর্যায়ে কিংবা তার থেকে উঁচু কোন ডিগ্রির জন্য পড়াশুনা শুরু করবেন তারা এই পরিবর্তিত নিয়মের সুযোগ পাবেন।

তবে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে এখানে অনেক রকম শর্ত থাকবে। শর্তানুযায়ী, বিদেশি শিক্ষার্থীরা অন্য কোনো শিক্ষা-প্রতিষ্ঠানে পুনরায় ভর্তি হতে পারবেননা। নিয়ম অনুযায়ী সেইসব প্রতিষ্ঠানের বিদেশি শিক্ষার্থীরা এই সুযোগ পাবেন যাদের শিক্ষার্থী ভর্তির ক্ষেত্রে অভিবাসন বিষয়ে শর্ত মেনে চলে ও যথাযথভাবে বিধি মেনে চলার ইতিহাস রয়েছে।

যুক্তরাজ্যে সরকারের এই ঘোষণাটি দিলো ঠিক তখনই যখন দেশটিতে ২০০ মিলিয়ন পাউন্ডের একটি বড় ধরনের জেনেটিক প্রকল্প চালু করা হয়েছে।