কুমিল্লায় ফেসবুকে বাজে ছবি ছড়িয়ে দেয়ার অপমান সইতে না পেরে স্মৃতি আক্তার নামের এক কলেজছাত্রীকে আত্মহত্যায় প্ররোচণার অভিযোগে অবশেষে সেই বখাটে আলমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।
স্মৃতি (১৮) জেলার লাকসাম নওয়াব ফয়জুন্নেছা সরকারি কলেজের দ্বাদশ ব্যবসায় শিক্ষা শাখার ২য় বর্ষের ছাত্রী ছিল। আত্মহত্যার আগে পাঁচ পৃষ্ঠার সুইসাইড নোটে তার মৃত্যুর জন্য ওই বখাটেকে দায়ী করেন। আলম লাকসাম পৌর শহরের রাজঘাট (পশ্চিমগাঁও) এলাকার লাল মিয়ার ছেলে। সে এলাকার চিহ্নিত বখাটে ও ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে পরিচিত।
সোমবার দুপুরে পুলিশ পৌরসভার পশ্চিমগাঁও এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। লাকসাম থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আশরাফ উদ্দিন বখাটে আলমকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কান্দিরপাড় ইউনিয়নের অশ্বতলা গ্রামের বিল্লাল হোসেনের মেয়ে স্মৃতি আক্তার গত শুক্রবার সন্ধ্যায় নিজ ঘরে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন। ওইদিন স্মৃতির মা অহিদা বেগম বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করেন। স্মৃতির বাবা বিল্লাল হোসেন লাকসাম রেলওয়ে জংশন এলাকায় নিউ আজমিরি নামে একটি হোটেলে কর্মচারীর কাজ করেন। কিন্তু স্মৃতিকে দাফনের পর শনিবার রাতে পরিবারের লোকজন স্মৃতির লিখে যাওয়া পাঁচ পৃষ্ঠার একটি সুইসাইড নোট খুঁজে পান। ওই সুইসাইড নোটে স্মৃতি তার মৃত্যুর জন্য বখাটে আলমকে দায়ী করেন। পরে ওই সুইসাইড নোট পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।
সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও স্মৃতির এই সুইসাইড নোটের বিষয়টি ভাইরাল হয়। এরপরই পুলিশ তাকে গ্রেফতারে তৎপর হয়ে ওঠে।
স্মৃতির মা জানান, আলম নামের ওই বখাটে প্রায়ই তার মেয়েকে উত্ত্যক্ত করত। এক সময় আলম তাকে হত্যা করার হুমকিও দেয়। বিষয়টি আলমের পরিবারকে জানানোর পর সে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। সে স্মৃতির নামে ফেসবুকে ভুয়া আইডি খুলে বিভিন্ন অপপ্রচার চালাতে শুরু করে। এক সময় স্মৃতির ছবি বাজেভাবে এডিট করে তা ফেসবুকে আপলোড করে আলম। এছাড়া স্মৃতি নামের ওই আইডি থেকে বিভিন্ন মানুষের সঙ্গে বাজে ভাষায় মন্তব্য করত আলম। যে কারণে স্মৃতি বিষয়গুলো জানার পর লজ্জায় অপমানে আত্মহত্যার পথ বেছে নেন।
স্মৃতির বাবা বিল্লাল হোসেন জানান, স্মৃতির ছবি বাজেভাবে এডিট করে তা ফেসবুকে পোস্ট করার অপমানে সে গত কিছুদিন থেকে কলেজ যাওয়া বন্ধ করে দেয়। আমরা কলেজে না যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে সে কিছুই বলত না, আলমের কারণেই আমার মেয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছে। আমরা তার বিচার চাই।
পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আশরাফ উদ্দিন জানান, বখাটে আলম কলেজছাত্রী স্মৃতিকে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করত। প্রাথমিক তদন্তে তা প্রমাণ পাওয়া গেছে। তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।