দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে প্রায় সময় অভিযোগ ওঠে কিছু মানুষ টাকা উপার্জন করার জন্য তরুণীদের খারাপ কাজ করতে বাধ্য করেন। এমনকি অনেক সময় কিছু রাজনৈতিক লোকের বিরুদ্ধেও নানা রকম অভিযোগ উঠে আসে। এবার এক সংরক্ষিত কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তিনি বিউটি পার্লার কর্মীকে দিয়ে অ’নৈতিক কাজ করান। তিনি গাজীপুরের সংরক্ষিত কাউন্সিলর।

বিউটি পার্লার কর্মীকে দিনের পর দিন জো’’র করে অ’নৈতিক কাজ করানোর অভিযোগ উঠেছে গাজীপুরের এক সংরক্ষিত কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে।

সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে পুলিশ বিউটি পার্লার থেকে ভুক্তভোগী ওই কিশোরীকে উদ্ধার করে। এ ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে মামলা হয়েছে জানিয়ে পুলিশ বলছে, বিষয়টির তদন্ত চলছে।

ভুক্তভোগী কিশোরী জানান, মোটা অঙ্কের বেতনের আশ্বাসে তাকে নিজ পার্লারে চাকরি দিয়েছিলেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর রোকসানা আহমেদ রোজী। পরে তাকে পার্লারে কাজের বদলে বিভিন্ন সময়ে পাঠানো হতো দে’’হ ব্যবসায়।

অভিযোগ রয়েছে, ওই কাউন্সিলর তাকে জি’’ম্মি করেই এ ব্যবসা করে আসছিলেন। খবর পেয়ে গেল রাতে চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় অভিযুক্ত কাউন্সিলরের মালিনাকাধীন আনন্দ বিউটি পার্লার থেকে নি’’র্যা’’তি’’তা’’কে উদ্ধার করে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে বাসন থানায় রোজী, নুরুল হকের নাম উল্লেখসহ আরো ২/৩ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগী ওই কিশোরী।

এ বিষয়ে কিছুই জানেন না দাবি করে অভিযুক্ত কাউন্সিলর ফোন কেটে দেন। তিনি গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ১৬, ১৭, ১৮ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত কাউন্সিলর।

প্রাথমিকভাবে ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে জানিয়ে বাসন মেট্রোপলিটন পুলিশের অফিসার ইনচার্জ বলছেন, আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।

ভুক্তভোগী কিশোরী দুই বছর আগে ধ’র্মান্তরিত হয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। নেত্রকোনার এই কিশোরীর গাজীপুরে কোন স্বজন না থাকায় অভিযুক্ত কাউন্সিলরের ভাড়া বাসায় থাকতেন। খবর-সময় নিউজ/ বিডিমর্নিং

এদিকে, এই সংরক্ষিত কাউন্সিলের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওঠার পর থেকে নানা রকম আলোচনা সমালোচনা শুরু হয়েছে। তবে এই বিষয়ে বর্তমানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী খতিয়ে দেখছেন। আর ওই কিশোরী ইতিমধ্যে ২ থেকে ৩ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।