পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ক্ষমতায় আসার পর থেকে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সঙ্গে সু-সম্পর্ক গড়ার চেষ্টা করে চলেছেন। এমনকি তিনি এশিয়ার প্রতিটি দেশের সঙ্গে বর্তমানে যোগাযোগ করে চলেছেন। এদিকে, ইমরান খান ক্ষমতাসয় আসার পর থেকে বাংলাদেশের সঙ্গে নানা বিষয়ে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছেন। ইতিমধ্যে তিনি বাংলাদেশে নিযুক্ত পাকিস্তানি রাষ্ট্রদূতকে সম্পর্ক উন্নয়নের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশের জনগণের জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন।

ঢাকায় নিযুক্ত পাকিস্তানি রাষ্ট্রদূত ইমরান আহমেদ সিদ্দিকীকে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করতে নির্দেশ দিয়েছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান।

দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক মূল্যায়নে গত সোমবার রাষ্ট্রদূত সিদ্দিকীকে ডেকে পাঠিয়েছিলেন পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী। সেসময় তাকে এ নির্দেশনা দিয়েছেন ইমরান খান।

সোমবার রাতে পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে একাধিক টুইটে জানানো হয়েছে, রাষ্ট্রদূত ইমরান আহমেদ সিদ্দিকী দুই দেশের সম্পর্কের বিষয়ে ইমরান খানকে অবহিত করেছেন।

এসময় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের শীর্ষ নেতৃত্ব এবং জনগণের জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে গত ১৭ মার্চ থেকে ১০ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালা উদযাপন করেছে বাংলাদেশ। এ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আমন্ত্রণ পান ভারত, নেপাল, ভুটান, শ্রীলঙ্কা ও মালদ্বীপের সরকারপ্রধানরা। তবে সেই তালিকায় ছিল না পাকিস্তান।

এ অবস্থায় বাংলাদেশে নিযুক্ত পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত ইমরান আহমেদ সিদ্দিকীকে ডেকে পাঠায় তার দেশ।

পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম ডনের খবর অনুসারে, বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী বিষয়ে আলোচনার জন্যই তাকে ডেকেছিল ইমরান খানের সরকার।

গত ১৬ মার্চ সিদ্দিকীকে নিয়ে প্রথমে বৈঠকে বসেন পাকিস্তানি প্রেসিডেন্ট ড. আরিফ আলভি। সেসময় তিনিও বাংলাদেশে নিযুক্ত রাষ্ট্রদূতকে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়নে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছিলেন।


উল্লেখ্য, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বাংলাদেশের সঙ্গে সু-সম্পর্ক গড়ার জন্য গত বছর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে টেলিফোনে কথা বলেন। এ সময় দুই দেশের নানা বিষয়ে আলোচনা হয়। এরপর থেকে ইমরান খান প্রায় সময় বাংলাদেশের সঙ্গে সু-সম্পর্ক জোরদার করার কথা বলে আসছেন। তেমনি এবার ঢাকায় নিযুক্ত পাকিস্তানি রাষ্ট্রদূতকে সম্পর্ক জোরদার করতে নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।